ফরম নম্বর দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম ২০২৩

আমাদের বাংলাদেশ এর মধ্যে যে সকল মানুষ নতুন ভোটার হয়েছে। তাদের নিকট অবশ্যই একটি ভোটার ফরম নম্বর থাকবে। আর আপনি চাইলে সেই ভোটার ফরম নম্বর দিয়ে আপনার ব্যক্তিগত ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন থেকে বের করে নিতে পারবেন। 

তবে এই আইডি কার্ড বের করার জন্য আপনাকে আসলে কোন কোন নিয়ম গুলো ফলো করতে হবে। এখন আমি আপনাকে সেই নিয়ম গুলো ধাপে ধাপে দেখিয়ে দিব। তো চলুন, এবার ভোটার ফরম নম্বর দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের সকল নিয়ম গুলো সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। 

ভোটার স্লিপ দিয়ে আইডি কার্ড বের করা যাবে কি ?

যেহেতু আপনি একজন নতুন ভোটার, সেহেতু আপনার মাথায় একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে। সেটি হল, ভোটার স্লিপ দিয়ে আইডি কার্ড বের করা যাবে কি না। আর আপনার মনে যদি এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে শুনে রাখুন, আপনি চাইলে বর্তমান সময়ে ভোটার লিস্ট বা ভোটার নম্বর দিয়ে আপনার আইডি কার্ড বের করে নিতে পারবেন। 

যদিও বা আপনি যদি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ওয়েট করেন। তাহলে আপনি সরাসরি নির্বাচন অফিস থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড নিতে পারবেন। কিন্তু যদি আপনার এই আইডি কার্ড খুব জরুরি হয়ে থাকে। তাহলে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে সেটি বের করে নিতে পারবেন।

তবে আপনি যদি আপনার প্রয়োজনে ভোটার আইডি কার্ড বের করে নিতে চান। তাহলে আপনার নিকট একটি মোবাইল অথবা একটি কম্পিউটার থাকতে হবে। যে গুলোর মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে অনলাইন থেকে আপনার ভোটার স্লিপ দিয়ে আইডি কার্ড বের করে নিতে পারবেন। 

ফরম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম

আলোচনার শুরুতেই আমি আপনাদের একটা কথা বলেছি। আর সেই কথাটি হল আপনি যদি আপনার ভোটার ফরম নম্বর দিয়ে আইডি কার্ড বের করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম ফলো করতে হবে। আর সেই নিয়ম গুলো কে এবার আমি খুব সংক্ষিপ্ত আকারে বলার চেষ্টা করব। যেমন,

  1. সবার শুরুতেই আপনাকে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  2. আপনি চাইলে এখানে ক্লিক করে সরাসরি উক্ত ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারবেন।
  3. এরপর আপনার সামনে নতুন একটি পেজ ওপেন হবে।
  4. এখন আপনাকে আপনার ভোটার ফরম নম্বর, জন্ম তারিখ দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। 
  5. তারপর অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার পর আপনি যখন আপনার একাউন্টে লগইন করবেন। 
  6. সেই অ্যাকাউন্ট থেকে আপনি আপনার আইডি কার্ড বের করে নিতে পারবেন। 

তো আপনি যদি অনলাইনের মাধ্যমে আপনার ভোটার ফর্ম নম্বর দিয়ে আইডি কার্ড বের করে নিতে চান। তাহলে আপনাকে আসলে কোন কোন নিয়ম গুলো ফলো করতে হবে। সে গুলো উপরে খুব সংক্ষিপ্ত আকারে উল্লেখ করা হয়েছে। 

ফরম নম্বর দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড

যদিও বা উপরের আলোচনাতে আমি আপনাদের খুব সংক্ষিপ্ত আকারে ভোটার ফরম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম গুলোকে বলেছি। তবে আপনি যদি এই নিয়ম গুলো অনুসরণ করতে চান। তাহলে আপনাকে আরো বেশ কিছু কাজ করতে হবে। তবে সেই কাজ গুলো করার আগে আপনাকে আরও ছোট একটি কাজ করতে হবে।

সেই কাজটি হল. আপনাকে গুগল প্লে স্টোর এর মধ্যে যেতে হবে। তারপর আপনাকে ”NID Wallet”  নামের একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ইনস্টল করে নিতে হবে। আর আপনি যখন এই ছোট্ট কাজটি করবেন। তখন আপনাকে নিচের পদ্ধতি গুলো ফলো করতে হবে। যে গুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার ভোটার ফরম নম্বর দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করে নিতে পারবেন।

প্রথমে একটি একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন করুন 

যখন আপনি উপরে উল্লেখ করার লিঙ্ক এর মধ্যে ক্লিক করবেন। তারপর আপনি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের মূল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন। এরপর আপনার সামনে বেশ কিছু অপশন আসবে। তো এখানে যদি আপনার আগে থেকেই একাউন্ট করা থাকে। তাহলে আপনি আপনার একাউন্টের ইমেইল এড্রেস ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করবেন। 

কিন্তু যদি আপনার আগে থেকে কোন প্রকার একাউন্ট না থাকে। তাহলে আপনাকে অ্যাকাউন্ট নেই এর নিচে থাকা ”রেজিস্ট্রেশন করুন” এই অপশনের মধ্যে ক্লিক করতে হবে। এবং উক্ত অপশন এর মধ্যে ক্লিক করার পরে আপনাকে পুনরায় নতুন একটি পেজের মধ্যে নিয়ে যাওয়া হবে। যেখানে আপনাকে আপনার বেশ কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করতে হবে। যেমন, 

  1. সবার প্রথমেই আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর / ফর্ম নম্বর প্রদান করতে হবে।
  2. এরপর আপনার যে জন্ম তারিখে রয়েছে সেটি আপনাকে দিতে হবে। 
  3. যখন আপনি উপরের যাবতীয় তথ্য গুলো দেওয়ার পর “সাবমিট” করবেন। তারপর আপনাকে আপনার বর্তমান ঠিকানা প্রদান করতে হবে।
  4. আর বর্তমান ঠিকানা প্রদান করার পরে আপনার যে স্থায়ী ঠিকানা রয়েছে, সেটি উল্লেখ করে দিতে হবে। 
  5. সবশেষে আপনাকে আপনার একটি সচল মোবাইল নম্বর প্রদান করতে হবে।
  6. এরপর আপনার সেই মোবাইল নম্বরে একটি ভেরিফিকেশন কোড যাবে। সেই কোড টি আপনাকে বসিয়ে দিতে হবে। 

আর যখন আপনি উপরের এই যাবতীয় কাজ গুলো সঠিক ভাবে করতে পারবেন। তারপর আপনার সামনে একটি কিউআর কোড আসবে। আপনি সেই কিউআর কোডটি ডিলিট করবেন না। কেননা আপনি প্রথমে যে ”NID Wallet” নামের এপ্লিকেশন টি ইন্সটল করেছেন, সেই অ্যাপ্লিকেশন টি ওপেন করুন।

আপনার ফেস ভেরিফাই করুন

সবার শুরুতেই আপনি NID Wallet নামের একটি অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল করেছিলেন। এবার আপনাকে সেই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে প্রবেশ করতে হবে। এরপর উক্ত অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে যে সফল ফিচার আসবে। সে গুলো তে টিক মার্ক প্রদান করে আপনি স্ক্যান করার একটি অপশন দেখতে পারবেন।

এবার আপনি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের অফিসে রেজিস্ট্রেশন করার পর যে কিউআর কোডটি দেখতে পাচ্ছেন। আপনার মোবাইলের মধ্যে থাকা NID Wallet নামের অ্যাপ্লিকেশন টি দিয়ে সেই কোড টি স্ক্যান করে নিতে হবে। 

যখন আপনি উক্ত কোডটি স্ক্যান করে নিবেন। তারপরে আপনাকে আপনার ফেস ভেরিফিকেশন করতে হবে। আর আপনি যখন সফল ভাবে আপনার ফেস ভেরিফাই করতে পারবেন। তারপর আপনাকে পুনরায় নির্বাচন কমিশন অফিসের সেই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে হবে। এবং আপনাকে আপনার অ্যাকাউন্ট এর যাবতীয় তথ্য গুলো দিয়ে লগইন করতে হবে। 

আপনার আইডি কার্ড বের করুন

উপরের পদ্ধতি গুলো ফলো করে যখন আপনি সফল ভাবে নির্বাচন কমিশন এর ওয়েবসাইটে একটি অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করবেন। এবং আপনি যখন আপনার সেই একাউন্টের মধ্যেই লগইন করবেন। তারপরে আপনি আপনার একাউন্টের ”প্রোফাইল” নামক অপশনে প্রবেশ করবেন। সেখানে আপনি ”ডাউনলোড” নামক একটি অপশন দেখতে পারবেন। 

তো আপনি যখন উক্ত অপশন এর মধ্যে ক্লিক করবেন। তারপর আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন থেকে সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। তো এভাবেই মূলত ফরম নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে হয়। আর আপনি এই ডাউনলোড করা আইডি কার্ডটি পরবর্তী সময়ে কম্পিউটারের দোকান থেকে প্রিন্ট ও লেমিনেট করে ব্যবহার করতে পারবেন। 

ভোটার রেজিস্ট্রেশন ফরম নাম্বার হারিয়ে গেলে করণীয়

আমরা সকলে জানি যে, নতুন ভোটার নিবন্ধন করার পরে প্রত্যেক টা ভোটার কে একটি করে ছোট ফরম এর অংশ দেওয়া হয়। যেখানে একটি ফরম এর নম্বর প্রদান করা হয়। কিন্তু কোন কারণে যদি আপনার সেই ফর্ম নম্বর বা সেই ফরম এর ছোট্ট অংশটি হারিয়ে যায়, তখন আপনি কি করবেন? 

মূলত কোনো কারণে যদি আপনার এই প্রয়োজনীয় ফর্ম নম্বর টি হারিয়ে যায়। তাহলে চিন্তা করার কোন দরকার নেই। বরং আপনাকে আপনার নিকটস্থ থানায় একটি সাধারণ জিডি করতে হবে। এবং যখন আপনি সেই জিডি করবেন, তারপরে আপনাকে উক্ত জিডি কপি উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে জমা দিতে হবে। আর যখন আপনি সেটি জমা দিবেন, তারপর আপনি সেখান থেকে আপনার ভোটার রেজিস্ট্রেশন ফরম নম্বর জেনে নিতে পারবেন। 

কিন্তু যদি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র বের করার দরকার হয়। তাহলে আপনাকে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড বের করে নিতে হবে। কিংবা আপনি উপরে দেখানো পদ্ধতি অনুসরণ করে নিজেই ভোটার রেজিস্ট্রেশন ফরম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করতে পারবেন। 

আপনার জন্য কিছুকথা

আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমরা জানতে পারলাম যে, কিভাবে ফরম নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করতে হয়। আশা করি, আজকের পদ্ধতি গুলো ফলো করতে আপনার কোন ধরনের সমস্যা হবে না। কিন্তু তারপরও যদি আপনার কোন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। 

আর ভোটার আইডি কার্ড, পাসপোর্ট কিংবা ভিসা রিলেটেড এই ধরনের অজানা বিষয় গুলো খুব সহজ ভাষায় জানতে হলে। নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করবেন। ধন্যবাদ, এতক্ষণ ধরে আমাদের সাথে থাকার জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top